সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ০৮:৩৬ অপরাহ্ন

শিরোনাম
রিটার্ন জমার সময় বাড়ানো হয়েছে ডিআরইউ’র সভাপতি নোমানী, সম্পাদক মসিউর কোম্পানীগঞ্জে তথ্য প্রযুক্তি আইনে এক ব্যক্তি গ্রেফতা সাতক্ষীরা প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় সমূহের এমপিও ভুক্তির দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত নোয়াখালীতে লাইসেন্সবিহীন হাসপাতাল বন্ধ ঘোষণার নির্দেশ, বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড ও জরিমানা এডিপি বাস্তবায়নে ভূমি মন্ত্রণালয়ের অগ্রগতি জাতীয় অগ্রগতির হারের চেয়ে বেশি রানীশংকৈল রামরায় দিঘীতে অতিথি পাখির আগমনে মুখরিত মুন্সীগঞ্জে বাংলাদেশ কালেক্টরেট সহকারী সমিতি পূর্ণ দিবস কর্মবিরতি ভাস্কর্য অপসারণের নামে দেশকে অস্থিতিশীল করার চক্রান্ত প্রতিহত করুন -তথ্য প্রতিমন্ত্রী বিনামূল্যে ৩ কোটি করোনার টিকা দেওয়া হবে: মন্ত্রিপরিষদ সচিব

‘টেস্ট না জিতলে কেউ বড় দল ভাববে না’

নিউজ ডেস্ক : বাংলাদেশ দলের কাছে ২০০৭ বিশ্বকাপে ভারতকে হারানো ছিল বড় পাওয়া। তামিম-সাকিব-মুশফিকদের ওই ম্যাচ দিয়েই উত্থান। মাশরাফি ততদিনে পরীক্ষিত সৈনিক। তবে সাকিব আল হাসানের কাছে ওই ম্যাচের সঙ্গে ১৯৯৭ আইসিসি ট্রফির ফাইনালের তুলনা হয় না। তিনি মনে করেন, ওই ম্যাচই বাংলাদেশের ক্রিকেটের এগিয়ে চলার পথ রচনা করে দিয়েছি।

হারশা ভোগলের সঙ্গে ক্রীড়া বিষয়ক সংবাদ মাধ্যম ক্রিকবাজে এক ভিডিও আলাপে সাকিব সেই স্মৃতি কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘ম্যাচটা টিভিতে দেখা হয়নি। রেডিওতে শুনেছিলাম। জয়ের পর মিছিল করেছিলাম, রঙ নিয়েে খেলেছিলাম।’ তবে তিনি মনে করেন, আইসিসি ট্রফি, ১৯৯৯ বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে জয় এবং ২০০৭ সালে ভারতের বিপক্ষে জয় বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য বড় ব্যাপার।

এর মধ্যে ভারতের বিপক্ষে বিশ্বকাপে জয়ের ম্যাচের অংশ সাকিব। গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ফিফটি পেয়েছিলেন। তার আগে ঝড়ো ইনিংস খেলে মোমেন্টাম গড়ে দিয়ে যান তামিম। ওই ম্যাচ নিয়ে তামিম কিছুদিন আগে জানান, শচীন, সৌরভ, দ্রাবিড়দের দেখতেই ব্যস্ত ছিলেন তিনি। অনুভূতিটা সাকিবের জন্যও অনেকটা একই। তারা একই হোটেলে ছিলেন। সব সময় তাদের সঙ্গে দেখা হওয়াটা অসাধারণ ছিল তাদের কাছে। সাকিবরা ম্যাচটা শুধু উপভোগের মন্ত্রে খেলেছিলেন।

তখন বড় দলকে হারানো ছিল আপসেট। তবে সাকিব মনে করেন এখন আর তা আপসেট না, ‘এখন সবাই বিশ্বাস করে বাংলাদেশ দুর্দান্ত এক দল। আপসেট কেউ বলে না। কারণ শেষ চার-পাঁচ বছর আমরা ভালো ক্রিকেট খেলছি। যেকোন দলকে বাংলাদেশ হারাচ্ছে, এটা কারও কাছে এখন আর বিস্ময়ের নয়। বিশেষ করে ওয়ানডেতে।’

তবে প্রকৃত অর্থে বড় দল হয়ে উঠতে নিয়মিত টেস্ট জিততে হবে বলে মনে করেন সাকিব। নয়তো বিশ্বকাপ জিততে হবে বা ফাইনালে খেলতে হবে, ‘আমাদের আসলে আগে টেস্ট খেলুড়ে দেশ হিসেবে মনেই করতো না কেউ। তবে ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়াকে হারানোর পর বাংলাদেশকে ভিন্নভাবে দেখে।

যতদিন না আমরা বড় দলের বিপক্ষে টেস্ট জিতবো। কিংবা বিশ্বকাপ জিতবো বা ফাইনালে খেলবো ততদিন কেউ আমাদের বড় দল বলে স্বীকৃতি দিতে চাইবে না। আমরা এখন টেস্টে ঘরের মাঠে ভালো খেলছি। অ্যাওয়ে ম্যাচে এখন আমাদের ভলো খেলতে হবে। টেস্টে এখনও আমাদের অনেক উন্নতি করার বাকি।’

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি