বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০৪:৪৭ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম

নোয়াখালীর সুবর্ণচরে ব্যবসায়ী বাড়িতে সন্ত্রাসী হামলা, আহত ৬

সুবর্ণচর(নোয়াখালী) প্রতিনিধি : নোয়াখালীর সুবর্ণচরের যোবায়ের বাজার সংলগ্ন ফজলুলহক মিয়ার বাড়িতে পরিবারের সদস্যদের উপর দেশীয় অস্ত্র নিয়ে অর্তকিত হামলা ও লুটপাট করে সন্ত্রাসীরা। হামলায় এক বছরের শিশু,নারীসহ ছয়জন আহত হয়েছে।

আহতরা হলেন,এক বছরের শিশু ফাতেহা,ফজলুল হক(৫৮),খালেদ হাসান মামুন(২২),দেলোয়ার হোসেন(২৫),যোবায়ের হোসেন(২৭),তাহমিনা আক্তার(১৮)। আহতদের নোয়াখালী সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

গত বুধবার দুপুরের দিকে স্থানীয় বাশারমাঝি, বোরহান সিকদার ও সালেহা সিকদার বাহিনীর সন্ত্রাসী এই হামলা চালায়। সন্ত্রাসীরা ফজলুলহকের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ও হামলা লুটপাট চালায়। এসময় সন্ত্রাসীরা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে থেকে নগদ অর্থ ও বাড়ির মহিলাদের স্বর্ণালঙ্কার লুট করে নিয়ে যায়।

হামলাকারী সন্ত্রাসীরা হলেন, পূর্ব চরবাটার দিদারুল আলম টিনু ছেলে কামরুল ইসলাম বাবু (২২),কূখ্যাত ডাকাত বাশার মাঝির ছেলে সোহাগ(২৩),নুরুলহুদা ওরফে হুদুসারেং এর ছেলে জুয়েল(৩৩),দেলোয়ার (৩০), আকবর হোসেন( ২৬) জিটু (২২), আকাশ(২০)। নিজাম ডাকাত,(৪০),মফিজ দরবেশের দিদারুল আলম টিনু(৬০)।

হামলায় আহত ফজলুল হকের ছেলে খালিদ হাসান মামুন জানান,নামাজ পড়ার জন্য বাড়ি থেকে বাহির হলে তারা আমাকে দেশীয় অস্ত্র, রামদা, চাপাতি, রড, হকস্টিক দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাত করে। খবর পেয়ে তার বড় ভাই দেলোয়ার হোসেন ঘটনাস্থলে গেলে সন্ত্রাসীরা তাকে ও ধাওয়া করেমারতে থাকে। একপর্যায়ে দেলোয়ার হোসেন নিজেকে রক্ষা করার জন্য আহত হয়ে বাড়িতে চলে আসলে সন্ত্রাসীরা ৮/৯ মিলে বাড়ির ভিতর প্রবেশ করে দেলোয়া হোসেনকে মাথায় ধারালো অস্ত্র রামদা এবং হকস্টিক দিয়ে মারতে থাকে। এতে দেলোয়ার হোসেন জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে পড়ে যায়। অত:পর ছোট ভাই যোবায়ের হোসেন বাড়িতে আসলে তাকেও নির্মম ভাবে রড দিয়ে মাথায় আঘাত করে । এতে যোবায়ের ও গুরুতর আহত হয় । এরপর আমি অচেতন হয়ে রাস্তায় পড়ে থাকি।
স্থানীয়রা জানান, পূর্ব বিরোধের জের ধরে এবং করোনা ভাইরাস ও লকডাউন চলাকালীন অবস্থায় সাংবাদিক ও পুলিশকে বিভিন্ন তথ্য দেওয়া সন্দেহে ফজলুলহক মিয়ার বাড়িতে ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে এ হামলা চালায়। এলাকাবাসী খবর পেয়ে ফজলুল হক মিয়ায় বাড়িতে আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হসপিটালে ভর্তি করেন। আহতদের মধ্যে দেলোয়ার হোসেনের অবস্থা আশংকাজনক। বর্তমানে তারা চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে।

আহত ফজলুল হক বলেন, আমার বাড়িতে ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা লুটপাট চালায় এতে আমার ছেলে মেয়ে আহত হন। আমার বাড়িতে থাকা নগদ ১লক্ষ ২০ হাজার টাকা , মেয়েও ছেলের বউয়ের গলায় থাকা গয়না নিয়ে যায়। এছাড়াও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হক ট্রেডাস থেকে প্রায় আড়াই লক্ষ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে বাশারমাঝি, বোরহান সিকদার ও সালেহা সিকদার বাহিনীর সদস্যদের মুঠোফোনে চেষ্টা করে ও কাউকে পাওয়া যায়নি।

চরজব্বর থানার ওসি সাহেদ উদ্দীন বলেন,অভিযোগ পেলে ঘটনা তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি