বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০২:১২ পূর্বাহ্ন

লক্ষ্মীপুর ভূমিদস্যু শাহাবুদ্দীন ও বাবুল এর বিরুদ্ধে বোন ফাতেমার সদর থানায় অভিযোগ

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি : ভাই বোনের মধুর সম্পর্ক, প্রাগৈতিহাসিক কাল থেকে এবন্ধন বিচ্ছিন্ন হবার নয়, ভাইয়ের বিপদে বোন এবং বোনের বিপদে প্রথমে ভাইরাই এগিয়ে আসার কথা থাকলেও লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার ২ নং দক্ষিন হামছাদী ইউনিয়নের পূর্বনন্দনপুর গ্রামের মৃত আফাজ মুন্সীর পুত্রদের ব্যাপারে উল্টো চিত্র প্রতিয়মান হচ্ছে বলে পুলিশ ও এলাকাবাসি সূত্রে জানা যায়। সম্পদই সকল অনিষ্ঠের মূল কান্ডারী।

শাহাবুদ্দিন, মহিন উদ্দিন ও ইলিয়াছ খোকনের অত্যাচারে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। দীর্ঘদিন যাবত তারা উক্ত নালিশী ভূমীতে( বাড়ীর) নজীর আহমেদ ড্রাইভারের বসতভিটা জোরপূর্বক জবরদখল করার জন্য তাদের ঘরের সন্মুখে বেড়া দিয়ে তাদের কে ঘরবন্দী করে রাখে। যাহা সম্পূর্ণ রুপে আইনের পরিপন্থী।

সরেজমিন ঘুরে এসে আমাদের প্রতিবেদক জানান, এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায় ২৫ নং দক্ষিণ হামছাদি মৌজার জেলা জরিপি ২০৬৭,২০৭১,২০৭৩,২০৭৬,২০৭৭,২০৭৯,২০৮১, ২০৮২ দাগ সমূহের অন্দরিয় ভূমিতে আবুল কাশেম গং শত বছরের পূর্বথেকে ওয়ারিশ সূত্রে এবং ২০৬৬ দাগে খরিদ সূত্রে মালিক দখলকার নিযুক্ত আছে। তফসিল সম্পত্তি রিভিশন জরিপী ৩ নং দক্ষিণ হামছাদি মৌজার আরএস ৮১৩ নং খতিয়ান ভুক্ত ৫২১১/৫২৬১ দাগে ২৫ ডিং, যাহা মৃত লাল মিঞার ওয়ারিশ সাতজন স্ব স্ব অবস্থানে ভোগ দখলে আছে বলে জানান। অপর দিকে মৃত আপাজউদ্দিনের পুত্র বাবুল ও শাহাবুদ্দিন গত ১৫ মার্চ সকাল ৮ ঘটিকায় দলবল নিয়া উপরোক্ত জমি জবর দখল করার মানসে সিমেন্টের পিলার দিয়ে ঘরের চারপাশ টিনের বেড়া দিয়ে চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দেয়।

বিষয়টি নিয়ে ভুক্তভোগী নজীর আহম্মদ লক্ষ্মীপুর সদর থানায় একটি অভিযোগ করেন, যাহার এসডিআর নং ৫৪৬/২০২০, এদিকে ভুক্তভোগী নজীর আহম্মদ বলেন, আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল কিন্তু জবর দখল কারিরা আইনশৃঙ্খলা ভঙ্গকারি, শান্তিভঙ্গ, হাঙ্গামা সহ প্রানে হত্যা, মারিবে কাটিবে বলিয়া বিভিন্ন সময়ে হুমকি ধমকি দিয়া আসিতেছে। তফসিল সম্পত্তি বসত ভিটি ও বাড়ির ভূমি হয়, যেখানে ভুক্তভোগী নজীর আহম্মদের বসত ঘর হওয়ায় তারই অপর ভাই আবুল কাশেম গত ১৬ মার্চ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত (সদর) লক্ষ্মীপুরে ফৌঃ কাঃ বিধি আইনের১৪৪/১৪৫ ধারায় মিছ মামলা নং ২৫৫/ ২০২০ দায়ের করেন।

আদালত লক্ষ্মীপুর সদর থানার অফিসার ইনচার্জ কে নালিশী ভূমিতে স্থিতাবস্থা বজায় রাখার জন্য বলেন, যাহার প্রসেস নং ৫৩১ তাং ১৬/৩/২০২০ । মামলা করার পরও আবুল কাশেমের ঘরের সামনে লাঠিয়াল বাহিনী নিয়ে এসে জোরপূর্বক ঘর তোলার চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে বাড়ির চলাচলের মুল প্রবেশ পথে খুটি ও টিনের বেড়া দিয়ে বাড়িতে ঢুকার প্রবেশমুখ সম্পুর্নরুপে বন্ধ করে দেয় ফলে বাড়িতে বসবাসরত লোকজন বাড়ির বাহিরে আসা যাওয়া নিয়ে খুবই সংকটে দীনাতিপাত করছে বলে প্রতিয়মান। এ ব্যাপারে বাড়ির লোকজন প্রতিবাদ করিলে শাহাবুদ্দিন ও তার শ্বশুর এবং আত্মীয় স্বজনদের মাধ্যমে এলাকায় ভয়ভীতি ও ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে বলে আবুল কাশেম জানান।

তেমনি ভাবে গত বৃহস্পতিবার ১০ সেপ্টেম্বর সকাল এগারটায় শাহাবুদ্দিন তার শ্বশুর মিলন মিয়া,তার অপর দুই ভাই বাবুল ও খোকন কে নিয়ে উক্ত বাড়ির আবুল কাশেম ও নজীর ড্রাইভারের উপর আক্রমন চালায়,

তাদের অন্যায় কাজে বাধাঁ প্রদান করলে তাদেরই ভগ্নিপতি হানিফ মেম্বার ও তার স্ত্রীর ফাতেমা বেগমের উপর দেশীয় অস্ত্র ও ইট নিয়ে দলবল সহ ঝাপিয়ে পড়ে। মাস পাচেঁক আগেও শাহাবুদ্দীন ও তার শ্বশুর মিলন মিয়া হানিফ মেম্বার ও তার পরিবারের উপর আক্রমন চালিয়ে আহত করে। এই বিষয়ে হানিফ মেম্বার দুঃখ প্রকাশ করে আমাদের প্রতিনিধিকে বলেন, আমি তাদের বড় ভগ্নিপতি। তারা আমাকেও ছাড়ে নি, আমার দাঁড়ি ধরে টানাটানি করেছে তারা এবং হুমকি দিয়ে বলে ফের যদি এই বিষয়ে নাক গলান তাহলে বোনকে বিধবা করে ফেলবো, দরকার হলে তোদের পরিবারের সবাইকে মেরে পরপাড়ে পাঠিয়ে দিবো, দেখবো তোরা কি করতে পারিস। তারা সার্থের জন্য সব পারে। তাদের মুল উদ্দ্যেশ্য হল যারাই তাদের অপকর্মের বিরুদ্ধে মুখ খুলবে কিংবা প্রতিবাদ করবে তাদের কে মামলা হামলা দিয়ে এরা হয়রানি করবে। বর্তমানে এরা আমার (হানিফ মেম্বারের) বসতঘরের সামনে জোরপূর্বক ঘর তোলার চেষ্টা করে, তাতে বাধা দিলে ভূমিদস্যু বাবুল ও শাহাবুদ্দিন নারী নির্যাতন মামলা করার হুমকী দেয় এবং আরো বলে তোদেরকে কিভাবে শায়েস্তা করতে হয় সেই ব্যবস্থাই করছি।

এই বিষয়ে ২ নং দক্ষিণ হামছাদি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মীর শাহআলমের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি বহুবার চেষ্টা করেছি বিষয়টি মিমাংসা করে শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষা করার কিন্তু অভিযুক্ত বাবুল গং দেশীয় আইন কানুন শালিস দরবার কিছুই মানে না।

উপরোক্ত অভিযোগ গুলোর বিষয়ে আসামি বাবুল মিঞার নিকট মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন করেও কোন উত্তর মিলেনি।

উপরোক্ত বিষয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দালাল বাজার পুলিশ কেম্পের ইনচার্জ উপপরিদর্শক পুলেন বড়ুয়া বলেন, ফাতেমা বেগমের অভিযোগে S,D,R- NO ২২৭১ ও ১৬ মার্চ ২০২০ ইং মিছ মামলা ২৫৫/২০২০ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত (সদর) লক্ষ্মীপুরে আবুল কাশেমের দায়ের কৃত মামলায় নালিশী ভূমী সরজমিনে গিয়ে শান্তিশৃঙ্খলা যেন বজায় রাখে সেই বিষয়ে উভয় পক্ষকে সতর্ক করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি