শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ০৮:৫৯ অপরাহ্ন

ইসলামপুর পৌর নির্বাচন জনসমর্থনে এগিয়ে উপাধ্যক্ষ ফরিদ উদ্দিন আহমেদ

জামালপুর প্রতিনিধি :: ব্যাপক জনসমর্থন নিয়ে আসন্ন ইসলামপুর পৌর নির্বাচনে গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন ইসলামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক উপাধ্যক্ষ ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। শিক্ষানুরাগী,সৎ ও নিষ্ঠাবান হওয়ায় এলাকায় তার যথেষ্ট সুনাম থাকায় দলমত নির্বিশেষে সকলের কাছে আস্থাজন হয়ে উঠেছেন তিনি।

মহামারী কোভিট-১৯ এর প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পরেও পৌরবাসীদের পাশে থেকে তাদের খোঁজ খবর নিয়েছেন তিনি। অসহায় মানুষদের পাশে থেকে তাদেরকে বিভিন্ন সাহায্য সহযোগিতা করেছেন তিনি। জামালপুর জেলার সবচেয়ে বেশী নদী ভাঙন কবলিত এলাকা ইসলামপুর উপজেলা। এ উপজেলাটি প্রতি বছরই ভয়াবহ নদীর ভাঙনের মুখে পরে। আর এ কারনেই প্রতি বছরই এখানে বিলীন হয় বিস্তৃীর্ণ ফসলী জমি আর বসতি জনপথ। ভাঙন কবলিত এ সকল অঞ্চলের দরিদ্র ঘরের ছেলে মেয়েরা তাই অর্থের অভাবে পড়াশোনা করতে পারে না। ফলে অধিকাংশ পরিবারের অভিবাবকরা তাদের সন্তানদের লেখাপড়া বন্ধ করে দেয়।

কিন্তু বর্তমানে জামালপুর জেলার সীমান্তবর্তী কুঁড়িগ্রাম,বগুড়া,টাঙ্গাইল,গাইবান্ধা আর সিরাজগঞ্জ জেলার নদী ভাঙন কবলিত এলাকার দরিদ্র ঘরের ছেলে মেয়েরা এখন আর তাদের পড়াশোনা বন্ধ করে না। তার এখন উচ্চ শিক্ষা গ্রহনের জন্য ছুটে আসেন ইসলামপুর সরকারী কলেজে। নিম্নবিত্ত পরিবার থেকে আসা শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার দায়িত্ব পরম যতেœ কাঁদে তুলে নেন এই কলেজেরই উপাধ্যক্ষ ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। গোটা জেলায় যিনি ফরিদ স্যার হিসেবে পরিচিত। দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের কাছে তিনি একজন আস্থার প্রতীক হয়ে আছেন। কারও ভর্তির টাকা কিংবা পরীক্ষার ফরম ফিলাপের টাকা কম পরলে ছুটে যান তার কাছে। আর তিনি সহসাই ওই সব শিক্ষার্থীদের ভর্তি ও ফরম ফিলাপের ব্যবস্থা করে দেন।

ইসলামপুর সরকারী কলেজটি ১৯৭০ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। সদ্য জাতীয়করনকৃত এই কলেজে বর্তমানে ১২টি বিষয়ে অনার্স ও ৪টি বিষয়ের উপর মাস্টার্স কোর্স চালু রয়েছে। আর এই সকল কোর্সে প্রায় সাত হাজার শিক্ষার্থী অধ্যায়ন করছেন।

উপাধ্যক্ষ ফরিদ উদ্দিন আহমেদ তৎকালীন ঢাকার সরকারী জগন্নাথ কলেজ থেকে বিএসএস অনার্স,এমএসএস কোর্স সম্পন্ন করে ইসলামপুর সরকারী কলেজে ১৯৯৩ সালের ২০ আগস্ট রাস্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে প্রভাষক হিসেবে যোগদান করেন। পরবর্তীতে ফরিদ উদ্দিন আহমেদ ২০১৪ সালের ৩০ মার্চ উপাধ্যক্ষ হিসেবে ইসলামপুর সরকারী কলেজের নিয়োগ লাভ করেন। কলেজের উপাধ্যক্ষ পদের দায়িত্ব নেয়ার পর থেকেই ফরিদ উদ্দিন আহমেদ স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ ফরিদুল হক খান দুলালের ঐকান্তিক সহযোগিতায় কলেজটির উন্নয়নে ব্যাপক কাজ শুরু করেন।

উপাধ্যক্ষ ফরিদ উদ্দিন আহমেদ ১৯৬৪ সালের ১মে ইসলামপুর পৌর এলাকার গাঁওকুড়া গ্রামে এক সম্ভান্ত মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহন করেন। তারা বাবা মরহুম নিজাম উদ্দিন আহমেদ একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা সংগঠক ছিলেন। কলেজটি নির্মাণের জন্য যারা-যারা অবদান রেখেছেন তাদের মধ্যে মরহুম নিজাম উদ্দিন আহমেদও একজন। তিনি কলেজের জমিদাতাও। জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত মরহুম নিজাম উদ্দিন আহমেদ ইসলামপুর পলবান্ধা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। বাবার পথ অনুসরন করেই উপাধ্যক্ষ ফরিদ উদ্দিন আহমেদ ১৯৭৮ সাল থেকেই ছাত্র লীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হন।

তিনি ১৯৮০ সালে এই কলেজে ভর্তি হয়ে কলেজ ছাত্র সংসদ নির্বাচনে নির্বাচন করে আপ্যায়ন ও প্রমোদ বিষয়ক সম্পাদক পদে জয় লাভ করেন। উপাধ্যক্ষ ফরিদ উদ্দিন আহমেদ একবার ইসলামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক ও পর পর দুইবার উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারন সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানেও তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারন সম্পাদকের দায়িত্বে আছেন। আগামী ইসলামপুর পৌরসভা নির্বাচনে তিনি মেয়র পদে নির্বাচন করবেন বলে জানা গেছে এবং আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেতে বেশ সুবিধাজনক অবস্থায় আছেন বলে স্থানীয় রাজনীতিবিদরা মনে করেন। সে লক্ষ্যেই তিনি পৌরসভায় ৯টি ওর্য়াডে এখন থেকেই ব্যাপক গণসংযোগ শুরু করেছেন এবং ইতিমধ্যেই নিজেকে সবচেয়ে যোগ্য প্রার্থী হিসেবে প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছেন ।

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি