মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ০৮:২৫ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
রিটার্ন জমার সময় বাড়ানো হয়েছে ডিআরইউ’র সভাপতি নোমানী, সম্পাদক মসিউর কোম্পানীগঞ্জে তথ্য প্রযুক্তি আইনে এক ব্যক্তি গ্রেফতা সাতক্ষীরা প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় সমূহের এমপিও ভুক্তির দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত নোয়াখালীতে লাইসেন্সবিহীন হাসপাতাল বন্ধ ঘোষণার নির্দেশ, বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড ও জরিমানা এডিপি বাস্তবায়নে ভূমি মন্ত্রণালয়ের অগ্রগতি জাতীয় অগ্রগতির হারের চেয়ে বেশি রানীশংকৈল রামরায় দিঘীতে অতিথি পাখির আগমনে মুখরিত মুন্সীগঞ্জে বাংলাদেশ কালেক্টরেট সহকারী সমিতি পূর্ণ দিবস কর্মবিরতি ভাস্কর্য অপসারণের নামে দেশকে অস্থিতিশীল করার চক্রান্ত প্রতিহত করুন -তথ্য প্রতিমন্ত্রী বিনামূল্যে ৩ কোটি করোনার টিকা দেওয়া হবে: মন্ত্রিপরিষদ সচিব

ঠাকুরগাঁওয়ে চাকুরী দেওয়ার নামে কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি :: চাকরি দেওয়ার নামে করে বেকার ফার্মাসিস্টদের কাছ থেকে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার মালগাঁও হারিয়াকন গ্রামে মো: আলমগীর রহমানের নামে।

২০১১ সালে রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে যোগদানের করেন। এবং মাত্র কয়েক বছরেই বনে যান বেকার ফার্মাসিস্টদের একটি সংগঠনের শীর্ষ পর্যায়ের নেতা।

আলমগীর রহমানের বাড়ি ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার মালগাঁও হারিয়াকন গ্রামে।

জানা যায়,আলমগীর রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফার্মাসিস্ট হিসেবে কর্মরত আছেন। তার অবৈধ সম্পদ অর্জনের বিষয়টি অনুসন্ধান করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) সহ বিভিন্ন দপ্তরে মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

লিখিত অভিযোগ থেকে জানা যায়, মধ্যবিত্ত পরিবারের আলমগীর রহমান ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ফার্মাসিস্ট হিসেবে ৯বছর আগে চাকুরিতে যোগ দেন। চলতি বছরের মে মাসে সরকারি ভাবে রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১১তম গ্রেডে ফার্মাসিস্ট হিসেবে নিয়োগ পেয়ে যোগ দেন আলমগীর রহমান।

বাংলাদেশ বেকার ডিপ্লোমা ফার্মাসিস্ট এসোসিয়েশন নামে একটি সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির মহাসচিব হিসেবে দায়িত্ব পান আলমগীর রহমান। বেকার ফার্মাসিস্টদের সরকারিভাবে হাসপাতালগুলোতে নিয়োগের দাবীতে আন্দোলন চালিয়ে যায় সংগঠনটি।

নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হলেই পীরগঞ্জের স্থানীয় দালাল দুলালসহ বিভিন্ন জেলায় তার নিয়োজিত দালালদের মাধ্যমে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার নামে বেকার ফার্মাসিস্টদের কাছ থেকে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেন আলমগীর। নিয়োগ বাণিজ্যের প্রায় ৪কোটি টাকায় তিনি নিজ এলাকা পীরগঞ্জ, দিনাজপুর ও ঢাকায় গড়েছেন নামে-বেনামে বিপুল সম্পদ।

আরও জানা যায়, পীরগঞ্জের হারিয়াকন গ্রামে ৩০ বিঘা জমিতে গড়ে তুলেছেন আম বাগান। ৩০টি পুকুর লিজ নিয়ে চাষ করছেন মাছ। গরুর খামার। দিনাজপুরে মায়ের নামে কিনেছেন কোটি টাকার জমির প্লট। ঢাকাতেও ফ্লাট কিনে ছাত্রাবাস হিসেবে ভাড়া দিয়েছেন। এছাড়াও নিজ এলাকায় গুড বাই’ নামে একটি বিলাসবহুল শপিং কমপ্লেক্সও দিয়েছেন।

এব্যাপারে আলমগীর রহমানের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমার বিরুদ্ধে তোলা এইসব তথ্যের কোন ভিত্তি নেই। সব বানোয়াট ও মিথ্যা।

এবিষয়ে পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রেজাউল করিম বলেন, বিষয়টি আমি জানি না। খোঁজ নিয়ে দেখব।

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি