রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ০৩:০৫ পূর্বাহ্ন

ঠাকুরগাঁওয়ে কবরস্থানে হালচাষ, প্রতিবাদে দুই ইউনিয়নবাসীর মানববন্ধন

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি :: ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার ৪নং বড়গাঁও ইউনিয়নের কুমারপুর কবরস্থান দখলের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে স্থানীয়রা।

শুক্রবার (৬ নভেম্বর) বিকালে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার ভুল্লী বাজারে কুমারপুর গোরস্থান ভূমিদস্যু আব্দুল আজিজ ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীর হাত থেকে রক্ষার দাবীতে ৪ নং বড়গাঁও, এবং ৫নং বালিয়া ইউনিয়ন এলাকাবাসীর আয়োজনে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

ঘণ্টাব্যাপী কর্মসূচিতে অংশ নেন, জেলা পরিষদের সদস্য রশোনুল হক তুষার, বড়গাঁও আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক মনরঞ্জন দেবনাথ মনি, বোদা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক আবু সাঈদসহ দুই ইউনিয়নের শত শত মানুষ।

এ সময় বক্তারা বলেন, ৪নং বড়গাঁও এবং ৫নং বালিয়া ইউনিয়নে প্রায় ২শ বছরের পুরনো কবরস্থান ও নতুন কবর ভেঙে দখল করে নিয়েছে আব্দুল আজিজ নামের এক ভূমিদস্যু।

ইতোমধ্যে কবরস্থান দখল করে গাছ রোপন ও হালচাষ করেছেন তারা। এ অবস্থায় কুমারপুর গ্রামে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এলাকাবাসী প্রশাসনের কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

জানা যায়, কুমারপুর গ্রামের প্রায় ১ হাজার পরিবার ২শ বছর পূর্ব থেকে গ্রামের কেউ মারা গেলে স্থানীয় বাসিন্দারা কুমারপুর গোরস্থানে কবর দিয়ে আসছে । কিন্তু হঠাৎ করে স্থানীয় ফায়ার সার্ভিসে ফায়ার ম্যানের কর্মরত আব্দুল আজিজ ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীরা যোগসাজশে নিজের জমি দাবি করে কবরস্থান দখল করে গাছ রোপণ করেন । এ অবস্থায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে কুমারপুর গ্রামে।

স্থানীয়রা জানান, জন্মে পর থেকে দেখে আসতেছি কুমারপুর কবরস্থানে কয়েক হাজার কবর দেয়া হয়েছে। একটি কবরের উপর ২০টি করে কবর পড়েছে। আমাদের বাপ দাদার কবরস্থানটি আব্দুল আজিজও তার বাহিনীর সদস্যরা জোরপূর্বক দখল করে নতুন করব গুলো ভেঙে দিয়ে গাছ রোপণ করেছে। এমনকি ৪নং বড়গাঁও ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ফজির উদ্দীন আহম্মেদের ও কবর ভেঙে দেওয়া হয়। এই দুর্যোগময় মুহূর্তে আমরা এলাকার সবাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীও স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতা চাই।

অভিযোগ সূত্রে কবরস্থান দখলকারি ব্যক্তিরা হলেন, ৪নং বড়গাঁও ইউনিয়নের কিশামত কৈশুর বাড়ি গ্রামের মো: আইয়ুব আলীর ছেলে আব্দুল আজিজ (৪২), মৃত আব্দুল কাদেরের ছেলে রফিকুল ইসলাম, মৃত, মকবুলের ছেলে খয়রুল, বাবুল, হাবিবর রহমানের ছেলে কবিরুল, মকবুল হসেনের ছেলে মশারুল, নুরুল হকের ছেলে মো: মিলনসহ কিছু ব্যক্তির বিরুদ্ধে শত বছরের কবরস্থান দখলের অভিযোগ উঠেছে। ইতিমধ্যে পরিবারটি গোরস্থান দখল করে পুকুরে মাছ চাষ ও গাছ রোপণ করেছে।

এবিষয়ে জানতে আব্দুল আজিজের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান প্রভাত কুমার সিং বলেন, ফায়ার সার্ভিসের ফায়ার ম্যান এ কর্মরত আব্দুল আজিজ শত বছরের পুরোনো কবরস্থান দখল করে গাছের চারা রোপন করেন। এলাকাবাসী অনেকবার তাকে বলেছে যদি আপনার জমি থেকে থাকে তাহলে আমরা বর্তমান বাজার মুল্যে টাকা দিব, দরকার হলে অন্যখানে আপনাকে জমি দেবো। তার পরেও তিনি কোন কথা শুনে না। আমাকেও পাত্তা দেয় না। আব্দুল আজিজ ফায়ার সার্ভিসে চাকুরী করেন তারই ক্ষমতা দেখাচ্ছেন।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, আমি অভিযোগ পেয়েছে একজন ফায়ার সার্ভিসের ফায়ার ম্যান কবরস্থানের কবর ভেঙে গাছের চারা লাগিয়েছে। এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত চলমান, তদন্তের রিপোট পেলেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © ২০২০ বাঙলার জাগরণ
কারিগরি সহযোগীতায় :বাংলা থিমস| ক্রিয়েটিভ জোন আইটি